চলতি সংখ্যা
বর্ষ ২৬ সংখ্যা ০২
গৌরবের ২৫ বছর

গরমে ফেশিয়াল

গরমে ফেশিয়াল

গ্রীষ্মকালে ত্বকে নানারকম নিঃসরণ ঘটে। স্বাভাবিকভাবেই ত্বকের তৈলাক্ততা বৃদ্ধি পায়। পরিবেশের ধুলােময়লা ত্বকে পড়ার কারণে লােমকূপের মুখ বন্ধ হয়ে যায়। কাজেই তখন তৈল বেরােতে পারে না। ফলে ব্রণ দেখা দেয়। ব্রণ। থেকে নিরাপদ থাকতে এবং ত্বকের স্বাভাবিক সৌন্দর্য ধরে রাখতে প্রয়ােজন তৃক পরিষ্কার রাখা। রােদে পােড়া ত্বকে ঔজ্জ্বল্য আনতে এবং ধুলােময়লা দূর করতে করতে পারেন কয়েকটি ফেশিয়াল।

প্রথম পদক্ষেপ 

বাইরে থেকে ঘরে ফিরে প্রথমে পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। ভেজা অবস্থাতেই ফেসওয়াশ বা ক্লিনজার নিজের হাতে নিয়ে সার্কুলার মােশনে মুখে কিছুক্ষণ ঘষতে পারেন। এরপর ভালাে করে মুখ ধুয়ে ফেলুন। তুলাে পানিতে ভিজিয়ে তাতে চোখ পরিষ্কার করার বস্তু দিয়ে চোখের চারপাশের ময়লা হালকা হালকা তুলতে পারেন। তুলােয় টোনার নিয়ে সারা মুখে লাগান। এরপর বড় একটি পাত্রে সহনীয় গরম পানি নিন। তােয়ালে দিয়ে মাথা ঢেকে স্টিম নিন। খেয়াল রাখবেন, মাখা যেন পানির পাত্র থেকে বেশ দূরত্ব থাকে। অতঃপর আপনি কিছু সময় গরম স্টিম মুখ পরিষ্কার করে নিতে পাৱেন। আপনার ত্বকের ধরুন অনুযায়ী ফেস-মাস্ক লান। এভাবে মাস্ক লাগানাে অবস্থায় ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এবার ভেজা কাপড় দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নেন। যথারীতি সেইসঙ্গে চোখও পরিষ্কার করে নিন। এখন মুখে সুবিধামতো ময়েশ্চারাইজার এবং চোখে আই-ক্রিম ভালাে করে লাগান। সাধারণত ২৫ বছর বয়সের পর ফেশিয়াল করা উচিত বলে মনে করা হয়। আর এই বয়সে মাসে একবার ফেশিয়াল করাই যথেষ্ট। ফেশিয়াল করাতে কিছু উপকার হয়। যেমন শুষ্কত্বকে বলিরেখা পড়ার সম্মান রোধ, তৈলাক্ত ত্বকে রক্ত চলাচল ঠিক রাখতেও ফেশিয়াল কার্যকর ভূমিকা রাখে।

হােম ফেশিয়ালের আরও টিপস

  • মুখ পরিষ্কার করার আগে হালকা স্টিম নিতে পারেন। এতে লােমকুপ হালকা বা স্বাভাবিক থাকে। তারপর নরম তােয়ালে উষ্ম হারবার চায়ে ভিজিয়ে নিয়ে চেপে চেপে মুখ, ঘাড় ও গলায় লাগান। এতে লােমকুপের গােড়া খুলে হালকা হয়। 
  • মুখ পরিষ্কার করার পর তুলােয় টোনার নিয়ে সমস্ত মুখ, গলা, ঘাড়ে লাগান। কিছু সময় মুখটা ভেজা থাকতে দিন। শুকনাে করে মুছে ফেলা ঠিক হবে না। চোখের চারপাশে কিন্তু টোনার লাগাবেন না। 
  • এরপর মুখে ময়েশ্চারাইজার লাগান। অনেকক্ষণ মুখের আর্দ্রতা বজায় রাখতে ভেজা অবস্থাতেই ময়েশ্চারাইজার লাগান। তবে মুখের যে জায়গাগুলাে বেশি শুষ্ক সেই জায়গাগুলােতে দুবার ময়েশ্চারাইজার লাগাতে পারেন।

বিভিন্ন রকমের ফেশিয়াল

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য অ্যাকনে ফেশিয়াল সাধারণত তৈলাক্ত কেই এই ফেশিয়াল করা হয়। প্রথমে পাতিলেবুর রস দিয়ে মুখের তেল পরিষ্কার করে নিন। এবার তুলাে পানিতে ভিজিয়ে ভালাে করে মুখ মুছে নিন। ১ টেবিল-চামচ চিনি অথবা লবণ অলিভঅয়েলের সঙ্গে মিশিয়ে ভালোভাবে মুখে ঘষতে থাকুন। চিনি বা লবণ গলে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এবার কুসুম পরম পানিতে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এখন এক কাপ দইয়ে, অর্ধেক পাতিলেবুর রস মিশিয়ে সারা মুখে লাগিয়ে রাখুন। আধাঘন্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন। উপকারিতা: অ্যাকনে , র‍্যাশ কমাতে এই ফেসিয়াল বেশ উপকারী।

ব্র্যান্ডি ফেশিয়াল

এটি তৈলাক্ত ত্বকের জন্য উপকারী। মুখের ফোলা ভাব কমায়। প্রথমে দুটো থেঁতো করা স্ট্রবেরি, ২ টেবিল-চামচ ব্র্যান্ডি, ২ চা-চামচ পাউরুটি গুড়াঁ, ১ ফোটা গোলাপজল ভালাে করে মিশিয়ে রেখে আধাঘণ্টা মাসাজ করুন। এরপর মুখ তুলে নিয়ে মুছে গােলাপজল লাগাতে পারেন। অথবা ২ টেবিল-চামচ পাকা পেঁপেও ব্যবহার করতে পারেন। সবশেষে মুখ ধুয়ে শসার রস লাগিয়ে রাখুন। উপকারিতাঃ এই ফেশিয়াল মুখে তাৎক্ষণিক উজ্জ্বলতা আনার জন্য বেশ উপকারী।

শুষ্ক ত্বকের জন্য রিভাইটিলাইজিং ফেশিয়াল

মুখে ও ঘাড়ে লাগানাের জন্য প্রথম ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে ৩-৫ ড্রপ পাতিলেবুর রস মিশিয়ে নিন। প্রথমবার লাগানাের পর শুকিয়ে গেলে আরও একবার লাগাতে পারেন। ১৫-২০ মিনিট রেখে গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন। ময়েশ্চারাইজিংয়ের জন্য ১ কাপ পানিতে ১ টেবিল-চামচ মধু মিশিয়ে সারা মুখে লাগান।

কিছুক্ষণ পর গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

কিছু টিপস 

  • বাড়িতে বসে অল্পসময়ে ফেশিয়াল করুন। মুখে ঈষদুষ্ণ পানির ঝাপটা দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। উষ্ণ পানিতে শেষবার মুখটা ভালাে করে ধুয়ে মুছে নেবেন।
  • পানি, ভিনিগার আর অ্যাসপিরিন মিশিয়ে টোনার তৈরি করুন। বয়সের ছাপ, আকনি কমাতে এটা খুবই উপকারী। দিনে অন্তত দুবার তুলােয় করে এই টোনার মুখে লাগাতে পারেন। 
  • তৈলাক্ত ত্বক হলে দিনে যতবার সম্ভব মুখ ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে নিন। | 
  • মেকআপ তােলার জন্য অলিভ অয়েল ব্যবহার করুন।

Leave a Reply

Your identity will not be published.